অভিবাসী বহনকারী একটি নৌকাডুবির ঘটনায় অন্তত ৪৫ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৬:২৯ PM, ২০ অগাস্ট ২০২০

 

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর- এর পক্ষ থেকে বুধবার বলা হয়, লিবিয়ার জাওয়ারা উপকূলে ইঞ্জিন বিস্ফোরিত হয়ে নৌকাটি ডুবে যায়। নৌকায় ৮০ জনেরও বেশি মানুষ ছিল। এর মধ্যে ৩৭ জনকে স্থানীয় জেলেরা জীবিত উদ্ধার করতে সক্ষম হন।

তাঁরা মূলত সেনেগাল, মালি, চাঁদ ও ঘানার নাগরিক। ভয়াবহ ও প্রাণঘাতী ওই দুর্ঘটনার পর বুধবার যৌথ বিবৃতিতে জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থা এবং আন্তর্জাতিক অভিবাসী সংস্থা এমন তথ্য দিয়ে উদ্ধার অভিযান জোরদার করার আহ্বান জানিয়েছে। সংস্থা দুটি বলছে ব্যাপক উদ্ধার অভিযান ছাড়া ভূমধ্যসাগরে আরও অনেকের প্রাণহানি ঘটবে।

ভূমধ্যসাগরের লিবিয়া উপকূলে অবৈধ অভিবাসী বহনকারী একটি নৌকাডুবির ঘটনায় অন্তত ৪৫ জন প্রাণ হারিয়েছেন। নিহতের মধ্যে পাঁচ শিশুও রয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী ইউএনএইচসিআর জানিয়েছে, নিহতরা লিবিয়া থেকে অবৈধভাবে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেওয়ার সময় নৌ দুর্ঘটনাটি ঘটে। এতে ৮০ জনেরও বেশি যাত্রী নিয়ে যাওয়ার সময় ছোট ওই নৌযানটির ইঞ্জিন বিষ্ফোরিত হয়।

এতে অন্তত ৪৫ জন প্রাণ হারান। স্থানীয় জেলে ও মৎসজীবীরা ৩৭ জনকে জীবিত উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছেন। এখনও বেশ কয়েকজন নিখোঁজ রয়েছে বিবিসির ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

জাতিসংঘ বলছে এটি চলতি বছরের সবচেয়ে মারাত্বক অভিবাসীবাহী নৌকাডুবির ঘটনা। সোমবার নৌকাটির ইঞ্জিন বিকল হয়ে পড়লে এই দুর্ঘটনা ঘটে বলে জাতিসংঘের বরাত দিয়ে বুধবার জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলো।

আপনার মতামত লিখুন :