আমিরাম বেন-উলিয়েলের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:৩৬ PM, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

 

অধিকৃত পশ্চিম তীরের দুমায় ২০১৫ ‍সালে সাদ ও রিহাম দম্পতি এবং তাদের ১৮ মাসের শিশু সন্তান আলি দাওয়াবশেহকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। এই দম্পতির আরেক ছেলে মারাত্মক দগ্ধ হলেও শেষ পর্যন্ত প্রাণে বেঁচে যায়। এ ঘটনা ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে নতুন করে সংঘাত উসকে দিয়েছিল। যাবজ্জীবন কারাদণ্ড পাওয়া আমিরাম বেন-উলিয়েলের বয়স তখন ছিল ২১ বছর।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের জুলাই মাসে ১৮ মাসের শিশুসহ ফিলিস্তিনি ওই পরিবারের তিনজনকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনার পরই বিচার দাবি করে নানা মানবাধিকার সংস্থা। তখন ‘ইহুদি জঙ্গিদল’ সন্দেহে কয়েকজনকে গ্রেফতার করার কথা জানায় ইসরায়েল। তবে গ্রেফতারকৃতদের সম্পর্কে বিস্তারিত কোনও তথ্য প্রকাশ করে না ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ।

জুলাই মাসের ওই হামলার পেছনে ইহুদি ধর্মাবলম্বী উগ্রপন্থী সেটেলারদের হাত আছে বলেই ধারণা করা হয়। বোমা হামলা করে পালিয়ে যাওয়ার সময় আক্রমণকারীরা পুড়ে যাওয়া একটি বাড়ির উঠানে হিব্রু ভাষায় ‘প্রতিশোধ’ শব্দটি লিখে যায়। বোমা হামলায় ১৮ মাসের শিশু আলি ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারায়। আলির বাবা সাদ হামলার এক সপ্তাহ পরে নিহত হন। আলির মা রেহাম শরীরের ৮০ ভাগ অংশে তৃতীয় মাত্রার দহন নিয়ে বেঁচেছিলেন সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত। আর আলির বড় ভাই চার বছরের আহমেদ দেহের ৬০ শতাংশ পোড়া নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বেঁচে যায়।

আপনার মতামত লিখুন :