ইভ্যালির বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ এসেছে।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:৪৮ PM, ৩১ অগাস্ট ২০২০

 

গ্রাহক ধরার কৌশল হিসেবে অফারের ক্ষেত্রে আগ্রাসী নীতি নিয়েছে দেশের ডিজিটাল বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ইভ্যালি। কোনো পণ্য কেনার ক্ষেত্রে ১৫০ শতাংশ পর্যন্ত ক্যাশব্যাক অফার দেওয়া হয়। অর্থাৎ ১০০ টাকা দামের পণ্য কিনলে পণ্যের সঙ্গে পাওয়া যাবে আরো ১৫০ টাকা! এসব অফার দেখে হুমড়ি খেয়ে পড়ে অধিকাংশ গ্রাহক। পরে দেখা যায়, বিষয়টা মোটেও তা নয়।

ক্যাশব্যাক নয়, তারা আসলে গ্রাহককে একটা ভাউচার দেবে। সেই ভাউচার দিয়ে আবার তাদের কাছ থেকেই পণ্য কিনতে হবে। অভিযোগ আছে- মূল পণ্য, যেটা গ্রাহক অর্ডার করেছিলেন, সেটা দেওয়ার খবর নেই কিন্তু ওই ভাউচার দিয়ে তাদের কাছ থেকে এক প্রকার বাধ্য করে পণ্য কিনিয়ে নিচ্ছে।

খুব অল্প দিনেই দেশীয় ই-কমার্সে জায়ান্ট হয়ে উঠেছে ইভ্যালি। প্রযুক্তির সহায়তা আর ইন্টারনেটের সহজলভ্যতার কারণে এমনিতেই মানুষ অনলাইনে কেনাকাটা বাড়িয়ে দিয়েছে।

উপরন্তু করোনাভাইরাসের কারণে সবকিছু যখন স্থবির তখন অনলাইনে কেনাকাটার প্রবণতা বেড়ে গেছে কয়েকগুণ। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়েছে ইভ্যালি। নানা কৌশলে প্রতারণার মাধ্যমে গ্রাহকের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে বিপুল অর্থ।

কামরুল আহসান নামের মিরপুরের এক বাসিন্দা ইভ্যালিতে দুটি ফ্যানের অর্ডার দিয়েছেন এক মাস আগে। ফ্যান এখনো এসে পৌঁছায়নি, তবে ক্যাশব্যাকের নামে দেওয়া ভাউচারে কাচ্চি বিরিয়ানি খেয়ে অফারের অর্থ শেষ করেছেন। অপেক্ষার পর এক পর্যায়ে বাইরে থেকে ফ্যান কিনে নিয়েছেন তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :