ঈদে রাস্তায় প্রয়োজন ছাড়া গাড়ি থামানো যাবে না বলেছেন সেতুমন্ত্রী।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:৪১ PM, ২১ জুলাই ২০২০

ঈদকে কেন্দ্র করে সংক্রমণ ছাড়ানোর ঝুঁকি এড়াতে জনগণকে সুরক্ষা দিতে দায়িত্বশীল সকলকে একযোগে কাজ করার নির্দেশ দিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, এটি ধর্মীয় উৎসব হওয়ায় সামাজিক ও ধর্মীয় বাস্তবতায় সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

এ ছাড়া তিনি বলেন, যেসব পরিবহন মালিক-সমিতি সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ও যাত্রী স্বার্থের বিরুদ্ধে যাবে তাদের বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।সোমবার ২০ জুলাই, বনানীতে বিআরটিএ প্রধান কার্যালয়ে কোরবানির ঈদ উপলক্ষে সড়ক-মহাসড়কে যাত্রী সাধারণের যাতায়াত নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন করতে করণীয় নির্ধারণ সংক্রান্ত সভায় তার বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে এ আহ্বান জানান তিনি।

এ সময় তিনি ঈদের আগে ও পরে সিএনজি স্টেশনগুলো খোলা রাখতে জ্বালানি বিভাগকেও অনুরোধ জানান।আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ঈদে যাত্রাপথে জ্বালানি সংগ্রহ ও জরুরি প্রয়োজন ছাড়া গাড়ি থামানো যাবে না।

সড়ক ও মহাসড়কের উপর এবং পাশে কোনোভাবেই পশুরহাট বসানো যাবে না। ওবায়দুল কাদের বলেন, ঈদের তিনদিন আগে থেকে পণ্যবাহী ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে জরুরি সার্ভিস ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্য পরিবহনে এ নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত থাকবে।

কোনো ধরনের অভিযোগ পেলেই ব্যবস্থা নিতে হবে। প্রতিটি টিপ শেষে গাড়ির ভেতর ও বাহিরে জীবাণুমুক্ত করতে হবে। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, মহাসড়কে ফিটনেসবিহীন যানবাহনে কোরবানির পশু পরিবহন বন্ধ করতে হবে। সচেতন না হলে সামান্য ভুল আমাদের জীবন বিপদ ডেকে আনতে পারে।

আপনার মতামত লিখুন :