এক যুবককে স্বামী দাবি করে প্রকাশ্যে মারামারিতে লিপ্ত দুই নারী।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৭:২৭ PM, ১৯ অগাস্ট ২০২০

মঙ্গলবার ১৮ আগস্ট বিমানবন্দরে নেমেই যেন লঙ্কাকাণ্ড। স্বামীকে নিজের সাথে নিয়ে যেতে সন্তানসহ অপেক্ষা করছিলেন দুই স্ত্রী। তাদের কাড়াকাড়ি আর মারামারিতে কাহিল অবস্থা হয় স্বামী মইনুলের।

জানা গেছে, প্রবাসী যুবক মইনুলের গ্রামের বাড়ী কুমিল্লার দাউদকান্দি এলাকায়। তিনি থাকেন মালদ্বীপে। দীর্ঘ ১৬ মাস পর মালদ্বীপ থেকে দেশে ফেরার পর দ্বিতীয় স্ত্রী তমার সাথে গাড়িতে করে কুমিল্লা ফেরার পথে বিমানবন্দরে বাধা দেন প্রথম স্ত্রী সানজিদা।

শুরুতে কথাকাটাকাটির মধ্যে সীমাবদ্ধতা থাকলেও মুহূর্তেই তা রূপ নেয় সংঘাতে। শেষ পর্যন্ত স্বামী তুমি কার- বিষয়টি মিমাংসার জন্য তিনজনকেই নিয়ে যাওয়া হয় থানায়।

প্রবাসী যুবক মঈনুল বলেছেন, ১৬ মাস আগে তিনি আরও একবার দেশে এসেছিলেন। সে সময়ও বিমানবন্দরে তার প্রথম স্ত্রী সানজিদা তাকে মারধর করে মালামাল ও টাকা নিয়ে যায়। তখন সে পালিয়ে বাচেঁ।

প্রবাস ফেরত এক যুবককে স্বামী দাবি করে রীতিমত প্রকাশ্যে মারামারিতে লিপ্ত হয়েছেন দুই নারী। ঢাকা আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের সামনে এই ঘটনা ঘটেছে। জানা গেছে, মালদ্বীপ থেকে ১৬ মাস পর দেশে ফিরেছেন মইনুল। তবে বিমানবন্দরে তার জন্য কী অপেক্ষা করছিলো তা হয়তো কল্পনাও করেনি এই যুবক।

অন্যদিকে প্রথম স্ত্রী সানজিদা দাবি করছেন, বিয়ের ৪ বছর হয়েছে তাদের। একটি সন্তানও আছে তাদের সংসারে। প্রবাসে যাওয়ার পর স্বামী মইনুল আর তার সংসার ও স্ত্রীর খোঁজ নেননি। ভরণপোষনও দেননি। তাই বাধ্য হয়ে বিমানবন্দরে সন্তানকে নিয়ে হাজির হতে হয়েছে তাকে।

আপনার মতামত লিখুন :