এবারের বন্যা সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে ইতিহাসে প্রথমবার।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:২৭ PM, ২২ জুলাই ২০২০

দেশের ২৫ টি জেলায় বন্যা কবলিত হয়েছে। বন্যা বিশেষজ্ঞরা জানান, সাধারণত ব্রহ্মপুত্র অববাহিকা দিয়ে ভারতের আসাম থেকে বাংলাদেশে বন্যার পানি প্রবেশ করে। এর সঙ্গে তিস্তা দিয়েও সিকিম থেকেও ঢলের পানি আসে। এ দুই নদ-নদীর পানি যমুনা দিয়ে পদ্মা হয়ে বঙ্গোপসাগরে যায়।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান ভূঁইয়া বলেন, তৃতীয় দফার এ ঢলে বন্যা পরিস্থিতি আগের চেয়ে মারাত্মক হতে পারে। এ ঢলের সঙ্গে দেশে বৃষ্টিও বেশি হচ্ছে। সরকারের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের পূর্বাভাস তথ্যানুযায়ী, গত ২৭ জুন থেকে ৭ জুলাই পর্যন্ত ছিল বন্যার প্রথম ঢল। এরপর ধীরে ধীরে পানি কিছুটা কমতে থাকে।

১১ থেকে ১৫ জুলাই পর্যন্ত আরেক দফা ঢলের কারণে বন্যার পানি বেড়ে যায়। এরপর চার দিন ধরে পানি কমছিল। কিন্তু সোমবার থেকে আবারও পানি বাড়তে শুরু করেছে। উজান থেকে আসা পানির এই প্রবাহকে বন্যার তৃতীয় ঢল বলা হচ্ছে।

সব মিলিয়ে এ দফায় ২০ থেকে ২৫টি জেলা বন্যাকবলিত হতে পারে।  বন্যার এই তৃতীয় ঢল ১০ থেকে ১৫ দিন থাকতে পারে। আগামী আগস্টের প্রথম সপ্তাহের আগে বন্যার পানি পুরোপুরি নেমে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই। আর গত দুই দিন ধরে উজানে ভারী বৃষ্টি হচ্ছে।

এর ফলে ব্রহ্মপুত্র অববাহিকায় নতুন করে বন্যার পানি বাড়াতে উত্তরা লের জেলাগুলোতে এবং সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর পানি বাড়ায় সিলেট অ লে নতুন করে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। এতে পানিবন্দী মানুষের দুর্ভোগ আরও বেড়েছে।

বাংলাদেশের উজানে ভারতের আসাম, মেঘালয়, মিজোরাম সময়ে তিন দফায় ভারী বৃষ্টি হওয়ায় দেশের নদী অববাহিকার পানি অতীতের যেকোনো সময়ে তুলনায় এখন বেশি। ফলে এবারের বন্যা দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী বন্যায় রূপ নিতে যাচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন :