এ দিনেই শেষবার ম্যারাডোনা ২৬ বছর আগে

Anwar HossainAnwar Hossain
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৪:০৯ PM, ২১ জুন ২০২০

গ্রিসের বিপক্ষে সেই গোলটির সময়ও কেউ কি ঘুণাক্ষরে ভেবেছিল, সেটিই হতে যাচ্ছে আর্জেন্টিনার জার্সিতে ম্যারাডোনার শেষ গোল।

গ্রিসের বিপক্ষে সেই গোলটির সময়ও কেউ কি ঘুণাক্ষরে ভেবেছিল, সেটিই হতে যাচ্ছে আর্জেন্টিনার জার্সিতে ম্যারাডোনার শেষ গোল। নাইজেরিয়ার বিপক্ষে ক্লদিও ক্যানিজিয়াকে যখন দারুণ একটি বল বাড়িয়ে দিয়ে গোল করালেন তিনি, সেদিনও কি কেউ ভেবেছিল আর্জেন্টিনার জার্সিতে সেটিই হতে যাচ্ছে কিংবদন্তির শেষ ম্যাচ! তবে ক্যারিয়ারের শেষ গোলেও তিনি সবাইকে যেন মনে করিয়ে দিয়েছিলেন, ফুটবল ইতিহাসের সর্বকালের সেরাদের তালিকায় কেন তাঁর নাম ওপরের দিকেই থাকবে।

ক্যারিয়ারের চতুর্থ বিশ্বকাপটা নিয়ে তিনি রীতিমতো মরিয়া ছিলেন। ১৯৮২ সালে ২০ বছর বয়সী ম্যারাডোনা নিজেকে পরিপূর্ণভাবে মেলে ধরতে পারেননি। আর্জেন্টিনা বিদায় নিয়েছিল দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই। ম্যারাডোনার কপালে জুটেছিল লাল কার্ড। সেই অপূর্ণতাকে পূর্ণতা দিলেন চার বছর পর, ১৯৮৬ মেক্সিকো বিশ্বকাপে। অনেকটা একক কৃতিত্বেই তিনি দেশকে জেতালেন দ্বিতীয় বিশ্বকাপ। এরপর ১৯৯০ সালে ইতালিতে আবারও একক কৃতিত্বের শক্তিটা দেখালেন বিশ্বকে, ভাগ্যও তাঁকে সেবার সহায়তা করেছিল। প্রায় ভাঙা একটি দলকে তুললেন বিশ্বকাপের ফাইনালে। কিন্তু ভাগ্য বিড়ম্বনার শুরুটা সেখান থেকেই। জার্মানির কাছে বিতর্কিত পেনাল্টিতে গোল খেয়ে হেরে গেল আর্জেন্টিনা। ম্যারাডোনা ফুঁপিয়ে ফুঁপিয়ে কাঁদলেন, কাঁদালেন সবাইকে। চুরানব্বইতে তাই মুখিয়ে ছিলেন আবারও নিজেকে প্রমাণের। কিন্তু শেষটা তাঁর হয়েছিল যাচ্ছেতাই।

ম্যারাডোনার জীবনের গল্পটাই এমন। গৌরব আর লজ্জা যেন সেখানে হাত ধরাধরি করে হাঁটে। তিনি সব সময়ই একটা বিশেষ চরিত্র, যে চরিত্র আনন্দ দিতে জানে, আবার বিতর্কে ডুবিয়ে দিতে পারে চারদিক। ফুটবলের গোটা ইতিহাসটাকেই যেন আরও বেশি প্রাঞ্জল করে তুলেছে এ কিংবদন্তির আবির্ভাব।
সর্বকালের অন্যতম সেরা এই ফুটবলারের শেষ গোলের সেই স্মৃতি সে কারণেই অবিস্মরণীয় ফুটবল দুনিয়ায়।

আনোয়ার/ডেইলিজার্নালবিডি

আপনার মতামত লিখুন :