কিন্ডার গার্ডেন স্কুল এবং কোচিং গুলো অস্তিত্ব সঙ্কটে।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৬:০৯ PM, ০৭ অগাস্ট ২০২০

 

শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন ভাতা পরিশোধের লক্ষ্যে, প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ  টিউশন ফি আদায়ের নোটিশ দিয়েছে। তবে এই দুর্যোগকালীন মুহূর্তে বেশির ভাগ অভিভাবকই টিউশন ফি দিতে নারাজ।

তারা বলছেন, টিউশন ফি ৫০ শতাংশ কমাতে কারণ বেশিরভাগ অভিভাবকের আয় কমে গেছে। অনেকে বেকার হয়েছেন। এই মুহূর্তে কোনোভাবেই টিউশন ফি দেওয়া যাবে না।

স্কুল-কলেজের টিউশন ফিসহ অন্যান্য ফি আদায়ের জন্য অভিভাবকদের ক্রমাগত চাপে রাখছে স্কুলের শিক্ষকরা। করোনায় কর্মহীন বা আয় কমে যাওয়ায় অভিভাবকদের অনেকেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের টিউশন ফি পরিশোধ করতে পারছেন না।

এমন অবস্থায় শিক্ষক-অভিভাবকরা পাল্টাপাল্টি অভিযোগ তুলেছেন।  করোনাভাইরাস মহামারিতে বিশ্ব অর্থনীতি যেমন থমকে গেছে, তেমনি বাধাগ্রস্ত হচ্ছে শিশুদের মানসিক বিকাশ। সেই সাথে অস্তিত্ব সংকটে কিন্ডারগার্টেন স্কুল ও কোচিং সেন্টারগুলো।

গত এপ্রিলে ব্যাপক হারে ভাইরাস সংক্রমণের মুখে স্কুল বন্ধ করে দেয়ায় গৃহবন্দি হয়ে পড়েছে শিক্ষার্থীরা। বেকার হয়ে পড়েছে এই সব প্রতিষ্ঠানের সাথে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক-কর্মচারীরা।

আপনার মতামত লিখুন :