কিশোর হত্যা মামলা

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০২:২১ PM, ১৯ অগাস্ট ২০২০

যশোর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. দিলীপ কুমার রায় জানান, তিন কিশোরের মৃতদেহের পায়ে, পিঠে ও মাথায় আঘাতের চিহ্ন আছে। মূলত মস্তিষ্কে আঘাতজনিত কারণেই তাদের মৃত্যু হয়েছে।

ময়নাতদন্ত রিপোর্ট সিভিল সার্জনের কাছে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন বলেন, হাসপাতাল থেকে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর যশোরের পুলিশ সুপারের কাছে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ওই কেন্দ্রে মারপিটের ঘটনায় তিন বন্দী কিশোর নিহত হয়। এ সময় আহত হয় আরও ১২ জন।

ঘটনার পরপরই কেন্দ্রের কর্মকর্তা মুশফিক আহমেদ দাবি করেন, বন্দী কিশোরদের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে মারাত্মক জখম হয় ১৫ কিশোর। তাদের আশঙ্কাজনক অবস্থায় যশোর জেনারেল হাসপাতালের পর্যায়ক্রমে ভর্তি করা হয়। পরে হাসপাতালের চিকিৎসকরা নাইম, পারভেজ ও রাসেল নামে তিন কিশোরকে মৃত ঘোষণা করেন।

কিন্তু পরে আহতদের বক্তব্য ও পুলিশের তদন্তে বেরিয়ে আসতে থাকে যে কেন্দ্রের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নির্মম পিটুনিতেই ওই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

আপনার মতামত লিখুন :