জাল টাকা নিয়ে প্রতি মুহূর্তে বিপাকে দেশের মানুষ।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:৩৭ PM, ২২ জুলাই ২০২০

জাল টাকা নিয়ে প্রতি মুহূর্তে বিপাকে দেশের মানুষ।

জাল টাকা নিয়ে প্রতি মুহূর্তে বিপাকে পড়তে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। জানা যায়, শুধু দেশেই নয়, দেশের বাইরে থেকেও বিপুল পরিমাণ নোট আসছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারি এড়ানোর জন্য সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোতে জাল টাকার কারখানা গড়ে তোলার খবরও

মিডিয়ার তরফে জানা যায়।

জাল টাকা লেনদেনের ক্ষেত্রে যেমন আস্থাহীনতা তৈরি হয়, তেমনি অর্থনীতির প্রভূত ক্ষতি সাধিত হয়। এই অর্থে জাল টাকার কারবারিরা রাষ্ট্রদ্রোহী। তাই যে কোনো উপায়ে এদের মূলোৎপাটন করতে হবে। এক্ষেত্রে সরকার, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি জনগণকেও সচেতন হতে হবে

রাজধানীর বংশাল ও দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ এলাকায় অভিযান চালিয়ে জাল টাকার কারবারি তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। প্রতি বছর ঈদের বাজারে লাখ লাখ টাকার জাল নোট ছাড়া আশঙ্কার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। জাল নোটের কারবার সর্বদা হয়ে থাকলেও কোরবানির ঈদ সামনে রেখে এর কারবারিরা সক্রিয় হয়ে ওঠে অধিক।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, আটকরা কোরবানির ঈদ সামনে রেখে জাল নোট তৈরি করে আসছিল। এবারও যে এসব অশুভ চক্রের তৎপরতা থেমে নেই, তা এরই মধ্যে স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। এ সময় তাদের কাছ থেকে বাংলাদেশি ১০০০ ও ৫০০ টাকা নোটের ৩৫ লাখ জাল টাকাসহ জব্দ করা হয় ও জাল টাকা তৈরিতে ব্যবহৃত একটি ল্যাপটপ, একটি লেমিনিটিং মেশিন, দুটি কালার প্রিন্টারসহ বিভিন্ন উপকরণ।

গতকাল সোমবার রাজধানীর বড় মগবাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে এক কোটি টাকার জাল নোট জব্দসহ দুই সদস্যকে আটক করে র‌্যাব। এ সময় জাল টাকা তৈরির বিভিন্ন সরঞ্জামও উদ্ধার করা হয়। স্মর্তব্য, ঈদ সামনে রেখে সিলেটে সক্রিয় হয়ে ওঠা জাল টাকার কারবারি চক্রের এক এজেন্টকে মে মাসে গ্রেপ্তার করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

এসব এজেন্টের মাধ্যমে প্রতি বছরের মতো এবারও ঈদের সময় বাজারে জাল নোট ছড়িয়ে দেওয়ার প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। এ থেকে সহজেই অনুমান করা যায়, বরাবরের মতো ঈদ কেন্দ্র করে জাল নোট কারবারিরা তাদের অশুভ তৎপরতা অব্যাহত রেখেছে।

জাল টাকা প্রতিরোধে সরকারের কঠোর অবস্থানের মধ্যেও যারা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে, তাদের খুঁটির জোর কোথায় তা তলিয়ে দেখা উচিত। এমনও লক্ষ করা যায়, আটক অপরাধীরা আইনের ফাঁকফোকরে বেরিয়ে ফের জাল টাকা তৈরির সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে।

এ থেকে স্পষ্ট, জাল টাকা তৈরির চক্রটি খুব শক্তিশালী। তাই এদের প্রতিরোধে সরকারের আরও কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। বাজার ও শপিংমল এলাকায় জাল টাকা চিহ্নিত করার পর্যাপ্ত প্রস্তুতি থাকতে হবে।

আপনার মতামত লিখুন :