টানা অষ্টম দিনের মতো ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৬:৩১ PM, ২০ অগাস্ট ২০২০

 

মঙ্গলবার মধ্যরাতে ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, যুদ্ধবিমান ও অন্যান্য বিমানের মাধ্যমে গাজা উপত্যকায় হামাসের সামরিক লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানা হয়েছে।

ওই বিবৃতিতে বলা হয়, আজ রাতে আরও একটি রকেট ছোড়া হয় এবং দিনের বেলা গাজা উপত্যকা থেকে বিস্ফোরক ও আগ্নেয় বেলুন ইসরায়েলি ভূখণ্ডে পাঠানো হয়। এর জবাবে গাজা উপত্যকায় চালানো হামলায় হামাসের বিশেষ একটি সামরিক স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়।

টানা অষ্টম দিনের মতো ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি যুদ্ধবিমান। দক্ষিণ ইসরায়েলে রকেট হামলার অভিযোগ এনে এই হামলা চালানো হয়।

হামাসের নিরাপত্তা সূত্রগুলো জানিয়েছে, ইসরায়েলি যুদ্ধবিমান ও ড্রোন হামাসের কাসেম ব্রিগেডের কয়েকটি স্থাপনায় হামলা চালিয়েছে। এসব হামলায় হামাসের সামরিক শাখাটির নিরাপত্তা অবস্থানের মারাত্মক ক্ষয়ক্ষতি ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। তবে কারোর মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি।

গত এক সপ্তাহ ধরে গাজা উপত্যকা ঘিরে ইসরায়েল ও হামাসের মধ্যে বাড়তে থাকা উত্তেজনা নিরসনে উভয় পক্ষের মধ্যে সমঝোতার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন মিসরের নিরাপত্তা কর্মকর্তারা।

এদিকে মঙ্গলবার বেশ কয়েক জন অগ্নিনির্বাপণ কর্মীর সঙ্গে দেখা করেন ইসরায়েলের প্রেসিডেন্ট রিউভেন রিভলিন। বলা হচ্ছে, এই কর্মীরা মঙ্গলবার ফিলিস্তিন থেকে পাঠানো বেলুন থেকে সৃষ্ট ৪০টি অগ্নিকাণ্ড নেভাতে সক্ষম হয়েছে।

জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের স্বীকৃতি এবং নিজ ভূমিতে ফেরার দাবিতে ২০১৮ সালে গাজার ইসরায়েলি সীমান্তে তীব্র বিক্ষোভে নামে ফিলিস্তিনি নাগরিকেরা। ওই বিক্ষোভের মধ্যে প্রথমবারের মতো অস্ত্র হিসেবে বিস্ফোরক বাধা বেলুন ও ঘুড়ির ব্যবহার দেখা যায়।

আপনার মতামত লিখুন :