ট্রলারে ভর্তি করে ফিরছেন জেলেরা।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৪:২৭ PM, ৩১ জুলাই ২০২০

 

চারপাশে রুপালি ইলিশের ছড়াছড়ি। কথা বলারও ফুরসত নেই কারও। কথা হয় বাঁশখালীর জেলে রঞ্জিত দাশের সঙ্গে। বললেন, ‘করোনায় বড় দুর্দিন কেটেছে। বেশি বেশি ইলিশ ধরা পড়ায় কিছুটা স্বস্তি মিলেছে।’

এ ধরনের মন্তব্য চট্টগ্রাম থেকে মাছ ধরতে যাওয়া প্রায় সব জেলেরই। সাগরে জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ধরা পড়ছে রুপালি ইলিশ। গত দু’দিনে সাগর থেকে ফেরা ট্রলার ও জেলেদের নৌকা ছিল ইলিশে ভর্তি। বাজারে দাম ভালো থাকায় খুশিও তারা। তবে দাম এখনও নিম্নবিত্তের নাগালের বাইরে।

ট্রলার মালিক ও জেলেরা বলছেন, মাঝারি ও বড় আকারের ইলিশ ধরা পড়ছে বেশি। পরিবেশ ভালো হলে আরও বেশি ইলিশ ধরা পড়বে। দাম থাকবে হাতের নাগালে। প্রাকৃতিক প্রজনন নিশ্চিতে গত ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত টানা ৬৫ দিন সাগরে ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ ছিল। করোনা মহামারির কারণেও গত মার্চ থেকে সাগরে যেতে পারেননি জেলেরা। দীর্ঘদিন মাছ আহরণ বন্ধ থাকার সুফল মিলছে- বলছেন বিশেষজ্ঞরা। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব মেরিন সায়েন্সেস অ্যান্ড ফিশারিজের অধ্যাপক ড. রাশেদ উন নবী বলেন, ‘এখনই ইলিশ মাছ ধরা পড়ার প্রকৃত সময়। ইলিশ লবণাক্ত পানির মাছ। কিন্তু এই মাছ মিঠা পানিতে ডিম দেয়। ডিম পাড়ার জন্য বাংলাদেশ ও পূর্ব ভারতের নদীতে প্রবেশ করে। ডিম ফুটে গেলে ও বাচ্চা বড় হলে ইলিশ সাগরে ফিরে যায়। সাগরে ফিরে যাওয়ার পথে জেলেরা এই মাছ ধরে। এ সময় বঙ্গোপসাগরের ব-দ্বীপাঞ্চল, পদ্মা- মেঘনা-যমুনা নদীর মোহনা থেকে প্রচুর পরিমাণে ইলিশ ধরা পড়ে। তাছাড়া দীর্ঘদিন মাছ আহরণ বন্ধ থাকায় ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ ধরা পড়ছে।’

আপনার মতামত লিখুন :