দিন দিন বেড়েই চলেছে ভারত-চীন এর সীমান্ত উত্তেজনা।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:২৫ PM, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২০

 

চলতি বছরের মে মাস থেকেই পূর্ব লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনার পারদ চড়ছে। প্যাংগং লেক, গলওয়ান, দেপসাং উপত্যকার মতো ভারতীয় ভূখণ্ডে ঘাঁটি গেরে বসেছে চীন।

১৫ জুন রাতে গলওয়ান উপত্যকায় বিনা প্ররোচনায় ভারতীয় সেনার উপর হামলা চালায় চীনা বাহিনী। অনুপ্রবেশকারী পিএলএ-কে রুখে নিহত হন এক কর্নেলসহ ২০ জন ভারতীয় সেনা।

এর ফলে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সীমান্তে বোমারু, এয়ার ডিফেন্স মিসাইল, আর্টিলারি, সাঁজোয়া গাড়ি, পদাতিক বাহিনী ও স্পেশ্যাল ফোর্স মোতায়েন করা হচ্ছে। পিএলএ চীনের সার্বভৌমত্ব এবং অখণ্ডতা রক্ষা করতে কতটা সক্ষম, এটা তারই প্রমাণ।

দিন দিন বেড়েই চলেছে ভারত-চীন এর সীমান্ত উত্তেজনা। লাদাখে উত্তজনা কমাতে কূটনৈতিক, সামরিক ও রাজনৈতিক স্তরে চীনের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছে ভারত। কারণ প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় স্থিতাবস্তা ফেরানোই নয়াদিল্লির উদ্দেশ্য়।

অন্যদিকে, লাদাখ সীমান্তে সামরিক শক্তি বাড়িয়েই চলেছে বেইজিং। সূত্রের খবর, সীমান্তে নতুন করে বোমারু এবং এয়ার ডিফেন্স মিসাইল মোতায়েন করেছে চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি।

ভারতের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই সীমান্তে সামরিক শক্তি বাড়াচ্ছে চীন। যার ফলে গত দুই সপ্তাহ ধরে ভারতের প্ররোচনায় সীমান্তে নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :