দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা যে একেবারেই ভঙ্গুর তা করোনাকালে আবারও প্রমাণ হয়েছে :মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৪:৩৪ PM, ৩১ জুলাই ২০২০

 

শুধু লুটপাট আর দুর্নীতি করে এই সেবা খাতকে ধ্বংস করা হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার স্বেচ্ছাসেবক দলের সদ্যপ্রয়াত সভাপতি শফিউল বারী বাবুর বাসায় গিয়ে তার পরিবারের সদস্যদের সান্ত্বনা জানানোর পর সাংবাদিকদের কাছে বিএনপি মহাসচিব এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, শফিউল বারী বাবুর মৃত্যু আবারও উদ্‌ঘাটিত করেছে যে, বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা খুব বেহাল। এখানকার স্বাস্থ্য ব্যবস্থার প্রতি মানুষ আস্থা রাখতে পারে না।

শফিউল বারী বাবুকে ‘মেধাবী নেতা’ অভিহিত করে মির্জা ফখরুল বলেন, তিনি দুটি সন্তান রেখে গেছেন।

তার পরিবারের মাথা গোঁজার ঠাঁইটুক নেই। এখনও ভাড়া বাসায় থাকেন। তার স্ত্রীকে অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া আমাকে বলেছেন, ‘তার সঙ্গে দেখা করে বলেন যে, আমরা সবাই তার সঙ্গে আছি। এই লড়াই শুধু তার স্ত্রী একা লড়বে না, তার সঙ্গে আমরাও লড়ব।’

রাজধানীর নিউ ইস্কাটনে শাইনপুকুর অ্যাপার্টমেন্টে প্রয়াত শফিউল বারী বাবুর বাসায় গিয়ে বিএনপি মহাসচিব বাবুর স্ত্রী বীথিকা বিনতে হোসাইনের সঙ্গে কথা বলে সমবেদনা জানান। বাবুর ছোট দুই ছেলেমেয়ে ফাতেমা বারী তুহিন ও আয়হান বারী সাঈদকে কাছে নিয়ে আদর করেন মির্জা ফখরুল। এ সময়ে বিএনপি নেতা কামরুজ্জামান রতন, প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নয়াপল্টন কার্যালয়ে দোয়া মাহফিল সকাল সাড়ে ১১টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের উদ্যোগে প্রয়াত সভাপতি শফিউল বারী বাবুর স্মরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তজুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েলের পরিচালনায় দোয়া মাহফিলে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শফিউল বারী বাবু গত ২৮ জুলাই ফুসফুসের জটিলতায় মারা যান।

আপনার মতামত লিখুন :