নদী ভাঙনে জমি বিলীন

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:৪২ PM, ২৩ জুলাই ২০২০

ভেসে গেছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) চলমান নদীতীর ও বাঁধের কাজ। এতে প্রায় ৩৪৯ কোটি টাকার ফসলের ক্ষতি হয়েছে। গত অর্থবছরে ২৯৭টি প্রকল্পের কাজ শেষ করেছে পাউবো। এর মধ্যে ৬৭০টি স্থানে ১০৯ দশমিক ৯২ কিলোমিটারের বাঁধের কাজ চলমান রয়েছে। কিন্তু বন্যা দেখা দেওয়ায় ৪৬ জেলায় এক হাজার ৯৩৮টি স্থানে বেড়িবাঁধ ও নদীর তীরের ৪৯৫ দশমিক ০২ কিলোমিটার বিলীন হয়েছে। এদিকে এবারের বন্যায় এ পর্যন্ত ২৮৮ কিলোমিটার আঞ্চলিক মহাসড়ক ও আন্তঃজেলা সড়ক ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সংশ্নিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

বন্যায় এখন পর্যন্ত পাউবোর প্রায় এক হাজার ১৭৩ কোটি ৯০ লাখ টাকার সম্পদের ক্ষতি হয়েছে। ইতোমধ্যে প্রতিষ্ঠানটি ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা চিহ্নিত করেছে। বন্যা শেষ হলে বাঁধ নির্মাণ করা হবে। এর সঙ্গে সংশ্নিষ্ট সবাইকে নির্দেশনা দিয়েছে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়।

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, গত ফেব্রুয়ারি থেকে দেশের বিভিন্ন এলাকায় নদীভাঙন দেখা দেয়। এর মধ্যে ৬৭০টি স্থানে ১০৯ দশমিক ০৯ কিলোমিটারের কাজ চলামান অবস্থায় গত ২৪ জুন বন্যা শুরু হয়। বন্যাকবলিত জেলাগুলোর মধ্যে নদীতীর ও বেড়িবাঁধ বিলীন হয়েছে রংপুরে আটটি স্থানে ৩ দশমিক ৯৮ কিলোমিটার, কুড়িগ্রামের ৩৩টি স্থানে ৯ দশমিক ৫৪ কিলোমিটার, লালমনিরহাটের ১৭টি স্থানে ৩ দশমিক ১১ কিলোমিটার, গাইবান্ধার ১৬টি স্থানে ২ দশমিক ৮৩ কিলোমিটার, ডালিয়া পয়েন্টের ২৪টি স্থানে ৫ দশমিক ২৬ কিলোমিটার, নীলফামারীর ১৩টি স্থানে ১ দশমিক ৬৯ কিলোমিটার, সৈয়দপুর পয়েন্টে ৪১টি স্থানে ৫ দশমিক ৪২ কিলোমিটার, ঠাকুরগাঁওয়ের ৬টি স্থানে ১ দশমিক ৪৩ কিলোমিটার, দিনাজপুরে ৬টি স্থানে ১ দশমিক ১৭ কিলোমিটার এবং পঞ্চগড়ের ৭টি স্থানে শূন্য দশমিক ৭৬ কিলোমিটার।

আপনার মতামত লিখুন :