পঁচাওরের স্মৃতি ১৫ ই আগস্ট।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:৪১ PM, ০৭ অগাস্ট ২০২০

 

১৫ আগস্টের পরবর্তীতে ক্ষমতায় আসা সামরিক ও বেসামরিক সরকার এই হত্যাকাণ্ডের বিচার কেন করেননি তা এখন জনগণের কাছে পরিষ্কার হয়ে গেছে। অনেকের মতে, আসলে পরোক্ষভাবে মূলত জিয়াই ছিলেন এই হত্যাকাণ্ডের পশ্চাৎ পরিকল্পনাকারী।

জেনারেল জিয়াউর রহমান, জেনারেল হোসেন মোহাম্মদ এরশাদ ও বেগম খালেদা জিয়া এই হত্যাকাণ্ডের বিচার বন্ধ করে রাখেন। এর চেয়ে বড় অপরাধ, বড় লজ্জা আর বড় অন্যায় কী হতে পারে। এই হত্যাকাণ্ডের সাথে এখনো জড়িয়ে আছে অনেক রহস্য যা হয়তো আর কোনোদিন প্রকাশ পাবে না।

আজ থেকে ৪৫ বৎসর পূর্বে বাংলাদেশ স্বাধীনতার মাত্র তিন বছর ছয় মাসের মাথায় পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট শুক্রবার বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে গুলি করে হত্যা করা হয়।

তাই তিনি বিচার করাতো দূরের কথা উল্টো হত্যাকারীদের বিদেশে বাংলাদেশ দূতাবাসগুলোতে চাকরি দিয়ে পুরস্কৃত ও পুনর্বাসিত করেন। পরবর্তীতে এরশাদ ও বেগম খালেদা জিয়া একই পথ অনুসরণ করেন।

বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর যারা ক্ষমতায় আসে তারা এই মহান নেতাকে জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন করার লক্ষ্যে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়। তবে শুনেছি আশি দশকের শেষের দিকে এরশাদ নাকি বঙ্গবন্ধুকে জাতির পিতা ও ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডের বিচার করার একটা উদ্যোগ নেয়ার চেষ্টা করেন

আপনার মতামত লিখুন :