বাংলাদেশে আটকে পড়া আড়াই হাজারেরও বেশি ভারতীয় নাগরিককে ফেরানোর নির্দেশ দিয়েছে ভারত সরকার।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:৫৪ PM, ১০ অগাস্ট ২০২০

 

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বিক্রম দোড়াইস্বামী পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহার কাছে ইতিমধ্যেই চিঠি লিখেছেন। সেখানে তিনি জানিয়েছেন, আমাদের মিশন থেকে জানা গেছে ২ হাজার ৩৯৯ জন পেট্রাপোল-বেনাপোল দিয়ে দেশে ফিরতে চান। ফুলবাড়ি-বাংলাবান্ধা দিয়ে ফিরতে চান আরও ২৮১ জন।

বাংলাদেশে আটকে পড়া এই মানুষগুলো নিদারুণ অসহায়ত্ব নিয়ে আছেন। অনেকে বিভিন্ন স্কুলের বারান্দা এবং পাবলিক পার্কে দিন কাটাচ্ছেন। এদের অধিকাংশ অদক্ষ কিংবা অল্পদক্ষ শ্রমিক। কেউ কেউ আবার আত্মীয়র বাড়িতে বেড়েতে গিয়েছিলেন।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকার থেকে কয়েক সপ্তাহ আগেও ছয়টি বন্দর দিয়ে আটকে পড়া নাগরিকদের ফেরানোর আহ্বান জানানো হয়। কিন্তু কর্মকর্তারা কোনো ব্যবস্থা নেননি।

আটকে পড়া ভারতীয়দের অভিযোগ, প্রতিদিন তারা হাইকমিশনে ফোন করলেও তেমন কোনো সাহায্য পাচ্ছেন না। শুধু বলা হচ্ছে, অনুমতি আসেনি।

করোনাকালীন সময়ে বাংলাদেশে আটকে পড়া আড়াই হাজারেরও বেশি ভারতীয় নাগরিককে ফেরাতে পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে ফের নির্দেশ দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার।

সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে উদ্ধৃত করে দেশটির সম্প্রচারমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, গত মার্চ থেকে অনেক ভারতীয় বাংলাদেশে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। লকডাউন শুরু পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশিদের ফিরতে দিলেও নিজের নাগরিকদের ফেরত নিতে ‘গড়িমসি’ করছে।

আটকে পড়াদের ফেরাতে বিশেষ ট্রেন চালু করা যায় কি না, সে ব্যাপারেও আরেকটি চিঠি দেয়া হয়েছে ভারতীয় রেলের কাছে।

আপনার মতামত লিখুন :