বেঁচে নেই রহমান

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০২:৫৬ PM, ২৮ জুলাই ২০২০

 

পুরান ঢাকার শাহনাজ হকের স্বামী শামসুল হক ২০০৭ সাল থেকে ‘নিখোঁজ’। চকবাজারের হাজী বালু রোডের বাসা থেকে বের হওয়ার পর আজও খোঁজ মেলেনি তার। ১৩ বছর ধরে স্বামীর পথ চেয়ে রয়েছেন শাহনাজ। নিখোঁজের জিডিও করেছিলেন চকবাজার থানায়। তবে নিখোঁজ রহস্যের কোনো কিনারা হয়নি এখনও। স্বামীর শোকের আবহের মধ্যেই গত ঈদুল ফিতরের দিন থেকে ছোট ছেলে আবদুর রহমানও (২২) নিখোঁজ হয়ে যায়। কয়েকদিন নানা জায়গায় খোঁজাখুঁজির পর চকবাজার থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন তিনি।

গত ১৩ জুলাই মুক্তিপণের একটি কললিস্টের সূত্র ধরে তদন্তের পর গতকাল সোমবার মর্মন্তুদ খবরই পেলেন শাহনাজ। দীর্ঘ দুই মাস পর তিনি জানতে পারলেন যে, তার কলিজার টুকরা রহমান আর নেই। অজ্ঞাত হিসেবে তার লাশ দাফন করেছে আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলাম।

কী ঘটেছে রহমানের ভাগ্যে : পুলিশি তদন্তে বেরিয়ে এসেছে, গত ২৫ মে খোকন নামে এক বন্ধুর ফোন পেয়ে বাসা থেকে বের হন রহমান। এরপর বাবুবাজার ব্রিজের ঢালে রোকন নামে এক ফল ব্যবসায়ীর দোকান থেকে ছয় হাজার ৬০০ টাকার বিনিময়ে তিন বোতল মদ কেনেন। ঈদের দিন ওই মদ খেতে খোকন তার বন্ধু আকাশের যাত্রাবাড়ীর কাজলার বোনের বাসায় যান। সেখানে গিয়ে খোকন, রহমান, আকাশ ও তাদের আরেক বন্ধু ইব্রাহিম মদ পান করেন। কিছু সময় পর তারা অসুস্থবোধ করেন। তাদের মধ্যে রহমানের অবস্থা খারাপ হতে থাকায় প্রথমে তাকে স্থানীয় অনাবিল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সংকটাপন্ন দেখে ওই হাসপাতাল থেকে রহমানকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরের পরামর্শ দেওয়া হয়। ঢাকা মেডিকেলে নেওয়া হলে রহমানকে মৃত ঘোষণা করেন ডাক্তার।

আপনার মতামত লিখুন :