মহিলাদের প্রচলিত নির্জনবাসের ধর্মীও কিছু দিক

Anwar HossainAnwar Hossain
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:৫৮ PM, ২২ জুন ২০২০

প্রচলিত নির্জনবাসের কিছু দিক এখানে আমরা উল্লেখ করছি :

কাজের মেয়ের সঙ্গে গৃহকর্তার নির্জনতা-
ঘরে, বাসা-বাড়িতে কাজের জন্য অনেক সময় যুবতী মেয়েদের নিয়োগ দেওয়া হয়। ঘরের কাজ-কর্মের জন্য বেগানা মহিলা রাখা হয়। পর্দার সঙ্গে বাসায় বেগানা মহিলা কাজ করতে পারে। কিন্তু আমাদের সমাজে ক’জন তার খেয়াল রাখে? পর্দা লঙ্ঘনের পাশাপাশি অনেক জায়গায় ঘরে একাকী গৃহকর্তার উপস্থিতিতে কাজের মহিলা কাজ করে। গৃহকর্তা রুমে কাজ করছেন বা শুয়ে আছেন, গৃহিণী রান্না ঘরে খাবার তৈরিতে ব্যস্ত, কাজের মেয়ে গৃহকর্তার রুম ঝাড়– দিচ্ছে, মেঝে পরিষ্কার করছে।
ব্যাচেলর ছেলেদের খাবার রান্নার জন্য কাজের বুয়া রাখার প্রচলন তো সর্বত্রই। কখনো কখনো বুয়া একজন পুরুষের উপস্থিতিতে ঘরে এসে কাজ করে। বিষয়গুলো আমাদের দৃষ্টিতে স্বাভাবিক হলেও ইসলামের দৃষ্টিতে ভয়াবহ গোনাহ।


লিফটে গায়রে মাহরাম নারী-পুরুষের নির্জনতা-
লিফটে উঠা-নামার সময় কখনো কখনো এমন পরিস্থিতি হয় যে, তাতে দুই জন গায়রে মাহরাম নারী-পুরুষ ব্যতীত আর কেউ নেই। পূর্ণ সতর আবৃত এবং পর্দা অবলম্বন করা সত্ত্বেও এভাবে গায়রে মাহরাম নারী ও পুরুষ, এমন নির্জন অবস্থায় একত্র হওয়া নিষেধ। হোক না তা খুব অল্প সময়ের জন্য। দুইয়ের অধিক মানুষ উঠার পর পথে লোকজন নেমে যাওয়ার কারণে দুজন নারী-পুরুষ একা হয়ে গেলে, এ ক্ষেত্রে আবশ্যক হলো, যেকোনো একজন নেমে পড়া। পৌঁছাতে একটু দেরি হলেও তাতে গোনাহ থেকে আত্মরক্ষা হবে। দুঃখজনক হলেও সত্য যে, হজের সময় মক্কা শরীফ ও মদীনা শরীফে হোটেলগুলোতে প্রায়ই এ ধরনের সমস্যা হয়। এ ব্যাপারে সতর্কতা অবলম্বন করা চাই।

আল্লামা ইবনে আবিদীন শামী রহ. বলেন,

أَنَّ الْخَلْوَةَ الْمُحَرَّمَةَ تَنْتَفِي بِالْحَائِلِ، وَبِوُجُودِ مَحْرَمٍ أَوْ امْرَأَةٍ ثِقَةٍ قَادِرَةٍ

দুজনের মধ্যে কোনো আড়াল থাকলে অথবা কোনো একজনের মাহরাম বা বাধা প্রদানে সক্ষম কোনো বিশ্বস্ত নারী উপস্থিত থাকলে, তা হারাম নির্জনবাসের অন্তর্ভুক্ত হবে না।-ফাতাওয়া শামী : ৬/৩৬৮

আপনার মতামত লিখুন :