মুখোমুখি সংঘর্ষের পরিস্থিতি তৈরি হলো ভারত এবং চীনের সৈন্যের।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:৪৯ PM, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

 

২৯ অগাস্ট রাত থেকে ৩০ অগাস্ট ভোর পর্যন্ত প্যাংগং লেকের দক্ষিণ প্রান্তে সংঘাত হয়েছিল ভারত এবং চীনের সেনার। ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ৩১ অগাস্টও একই ঘটনা ঘটেছে। তবে এ বারে হাতাহাতি হয়নি।

৩১ অগাস্ট ভারতীয় সেনাকে প্যাংগংয়ের দক্ষিণ প্রান্তে ঘিরে ধরেছিল চীনের সেনা। উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ের পরে হাতাহাতির পরিস্থিতি তৈরি হলেও কমান্ডারদের নির্দেশে দুই পক্ষই সরে যায়।

ভারতের দাবি, চীন অন্যায়ভাবে দক্ষিণ প্যাংগং এলাকায় ভারতীয় এলাকায় ঢোকার চেষ্টা করছে। কিন্তু দিল্লিতে চীনের দূতাবাস অত্যন্ত কড়া ভাষায় বিবৃতি দিয়েছেন।

তাতে বলা হয়েছে, ভারতীয় সেনা চীনের এলাকা দখল করে বসে আছে। যা ভারত এবং চীনের সীমান্ত চুক্তির বিরোধী। অবিলম্বে ভারতীয় সেনাকে ওই এলাকা ছেড়ে চলে যাওয়ার দাবি করেছে চীন।

সাত দিনে পর পর দুইবার। মুখোমুখি সংঘর্ষের পরিস্থিতি তৈরি হলো ভারত এবং চীনের সৈন্যের। প্রথম দিন সামান্য সংঘাত হলেও দ্বিতীয় দিন তারা হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েনি বলেই খবর। তবে লাদাখে পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত, যে কোনও সময় ফের সংঘাতের সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

অন্য দিকে, ভারত-চীন সীমান্তবর্তী প্রতিটি অঞ্চলে রেড অ্যালার্ট জারি করেছে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। পাঠানো হয়েছে অতিরিক্ত সেনা। দেশটির গোয়েন্দা সূত্র জানাচ্ছে, পূর্ব লাদাখে প্যাংগং লেকের দক্ষিণ প্রান্তে ভারতীয় সেনাকে ব্যস্ত রেখে উত্তর-পূর্ব ভারতের চীন সীমান্তে বড়সড় আক্রমণ চালাতে পারে চীন।

আপনার মতামত লিখুন :