মুম্বাইয়ে ভয়াবহ বন্যা দেখা দিয়েছে, ভোগান্তিতে পড়েছেন স্থানীয়

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৬:০৩ PM, ০৫ অগাস্ট ২০২০

 

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম
এনডিটিভির খবরে বলা হয়, আজ মঙ্গলবার ও আগামীকাল বুধবারের জন্য মহারাষ্ট্রের রাজধানী মুম্বাই ও এর আশপাশের কয়েকটি জেলায় রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। টানা বৃষ্টিতে বেশ কয়েকটি এলাকায় বন্যা দেখা দেওয়ার পর মঙ্গলবার জরুরি সেবা ছাড়া মুম্বাইয়ের সব অফিস এবং স্থাপনাও বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

মুম্বাইয়ে প্রায় দুই কোটি লোকের বাস। বন্যার কারণে বেশ কয়েকটি এলাকার রেললাইন ডুবে যাওয়ায় মুম্বাইয়ের ‘লাইফলাইন’ খ্যাত লোকাল ট্রেনের চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। মুম্বাইয়ের পাশাপাশি থানে, পুনে, রাইগড় ও রত্নগিরি জেলায় রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে।
আজ মঙ্গলবার বৃহানমুম্বাই মিউনিসিপাল করপোরেশন থেকে বলা হয়, গতকাল সোমবার রাতের তুমুল বৃষ্টি এবং আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাসের কারণে জরুরি সেবা ছাড়া মুম্বাইয়ের সব অফিস ও স্থাপনা বন্ধ থাকবে।

মহারাষ্ট্রের অন্তত ২৬টি এলাকায় বন্যার খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে গরেগাঁও, কিং সার্কেল, হিন্দমাতা, দাদার, শিবাজি চক, শেল কলোনি, কুরলা এসটি ডিপো, বান্দ্রা টকিজ, সিওন রোডসহ বিভিন্ন এলাকার রাস্তা পানিতে ডুবে গেছে। ২০০৫ সালের পর এটিকেই সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা বলছেন মুম্বাইবাসী।
গতকাল সোমবার সারা রাত তুমুল বৃষ্টিতে আজ মঙ্গলবার সকালের দিকে কান্দিভালির উপকণ্ঠে ওয়েস্টার্ন এক্সপ্রেস হাইওয়েতে ভূমিধসেরও ঘটনা ঘটেছে। এতে দক্ষিণ মুম্বাইয়ের পথে থাকা গাড়িগুলোর চলাচল খানিকটা বিঘ্নিত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।
ভারতের আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, আজ মঙ্গলবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত উত্তর মহারাষ্ট্র উপকূলে ঝড়ো বাতাস বয়ে যেতে পারে।
সাধারণত প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে মুম্বাইয়ের রাস্তাঘাট বন্যার পানিতে ডুবে যায়। গত বছর শহরটিতে এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতে বেশ কয়েকজনের প্রাণহানির পাশাপাশি রেল, সড়ক ও বিমান যোগাযোগও মারাত্মকভাবে বিঘ্নিত হয়েছিল।

আপনার মতামত লিখুন :