লোকচক্ষুর আড়ালে বাংলাদেশ থেকে উধাও ৬৪ হাজার কোটি টাকা

Mohammad BiplobMohammad Biplob
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:৩৩ PM, ২০ জুন ২০২০

আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে প্রতিবছর গড়ে ৭৫৩ কোটি ৩৭ লাখ ডলার পাচার হয়। বর্তমান বাজারদরে (৮৫ টাকায় প্রতি ডলার) এর পরিমাণ ৬৪ হাজার কোটি টাকা।

প্রতিবেদনটিতে ১৩৫টি উদীয়মান ও উন্নয়নশীল দেশের গত ১০ বছরের (২০০৮-২০১৭) আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে মূল্য ঘোষণার গরমিল দেখিয়ে কীভাবে দেশ থেকে অর্থ পাচার হয়, সেই চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। পাশাপাশি ৩৫টি উন্নত দেশের সঙ্গে তুলনামূলক চিত্রও দেওয়া হয়েছে। একটি দেশ অন্য দেশের সঙ্গে আমদানি-রপ্তানি করার সময় প্রকৃত মূল্য না দেখিয়ে কমবেশি দেখানো হয়। মূল্য ঘোষণার বাড়তি অংশের অর্থ বিদেশে পাচার করে দেওয়া হয়। এমন তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে জিএফআই প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে।

শীর্ষে চীন
আমদানি-রপ্তানির মাধ্যমে অর্থ পাচারে শীর্ষে আছে চীন। ২০০৮ থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে প্রতিবছর গড়ে ৪৮ হাজার ২৩৯ কোটি ডলার পাচার হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা রাশিয়া থেকে বছরে পাচার হয় ৯ হাজার ২৬৩ কোটি ডলার। আর মেক্সিকো থেকে ৮ হাজার ১৫১ কোটি ডলার বিদেশে গেছে।

প্রতিটি দেশ জাতিসংঘ কমট্রেডে নিজেদের বাণিজ্যের তথ্য-উপাত্ত সরবরাহ করে। সেই তথ্য-উপাত্ত ব্যবহার করে জিএফআই বিদেশে চলে যাওয়া অর্থের হিসাব করে থাকে। ২০০৭ থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে ১৩৫টি উন্নয়নশীল দেশ ও ৩৫টি উন্নত দেশের মধ্যে যে বাণিজ্য হয়েছে, তাতে প্রায় ৮ দশমিক ৮ ট্রিলিয়ন ডলারের সমপরিমাণ মূল্য ঘোষণায় গরমিল হয়েছে।

এডমিন/ডেইলিজার্নাল বিডি

আপনার মতামত লিখুন :