(শিশুকে) সর্বপ্রথম কালেমা ও ঈমানের তালীম দেওয়া

Anwar HossainAnwar Hossain
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:৪৮ PM, ২২ জুন ২০২০

তাবেয়ী ইবরাহীম আততাইমী রহ. বলেন,
كانوا يستحبون أن يلقنوا الصبي يعرب أول ما يتكلم يقول لا إله إلا الله سبع مرات ويكون ذلك أول شئ يتكلم به
সাহাবীদের পছন্দনীয় আমল ছিল—শিশু কথা বলা শিখলে সর্বপ্রথম সাত বার লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ’র তালকীন করা অর্থাৎ মুখে মুখে বলে শেখানো। আর এ কালিমাই হতো তাদের প্রথম কথা।-মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা : ৩/২০৫, হাদীস নং : ৩৫১৯


বলো, সকল প্রশংসা আল্লাহর, যিনি কোনো সন্তান গ্রহণ করেননি। তার রাজত্বে কোনো অংশীদার নেই। অক্ষমতা দূর করার জন্য কোনো অভিভাবক নেই। তার মহিমা বর্ণনা করো, ঠিক যেভাবে তার মহিমা বর্ণনা করা উচিত।-মুসান্নাফে আব্দুর রাযযাক : ৪/৩৩৪, হাদীস নং : ৭৯৭৬
হযরত হুসাইন রাযি. এর ছেলে আলী রহ. তার সন্তানদের বসে বসে এভাবে ঈমান শেখাতেন—
قل آمنت بالله وكفرت بالطاغوت
বলো, আমি আল্লাহর প্রতি ঈমান এনেছি আর সকল তাগুতকে অস্বীকার করেছি।-মুসান্নাফে ইবনে আবী শায়বা : ৩/২০৫, হাদীস নং : ৩৫১৮

আপনার মতামত লিখুন :