শেখ রাসলের ৭১ তম জন্মবার্ষিকী।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৪:৩২ PM, ০৬ অগাস্ট ২০২০

 

শেখ কামাল যদি আজকে বেঁচে থাকত তবে দেশ ও সমাজকে অনেক কিছু দিতে পারত। কারণ তার যে বহুমুখী প্রতিভা বিকশিত হয়ে দেশের সকল অঙ্গনে অবদান রাখতে পারত এবং রেখেও গেছে সে চিহ্ন। তার নতুন নতুন চিন্তাভাবনা ছিল। তাই আজকে যদি বেঁচে থাকত হয়তো দেশকে অনেক কিছু দিতে পারত।
বুধবার বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠপুত্র মুক্তিযোদ্ধা শহীদ শেখ কামালের ৭১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ ভবনে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী ১৫ আগস্টের মর্মান্তিক ঘটনার স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে বার বার আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। পিঠাপিঠি ছোট ভাই শেখ কামালের কথা বলতে গিয়েও স্মৃতিকাতর হয়ে পড়েন তিনি। বেদনার্ত কণ্ঠে তিনি বলেন, ‘আমি যে সব একদিনে এভাবে হারাব, এটা কখনই চিন্তা করতে পারিনি, কল্পনাও করতে পারিনি।’

১৫ আগস্টের হত্যাকারীদের বিচার করতে দীর্ঘদিন অপেক্ষা করার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আপনারা সবাই একবার চিন্তা করে দেখুন। দেশে একটা মৃত্যু হলে তার বিচার দাবি করেন আমার কাছে। আর আমি কিন্তু বিচার পাইনি। আমরা বিদেশে ছিলাম। আমরা দেশে ফিরতে পারিনি। আমাদের দেশে ফিরতে বাধা দিয়েছে। এরপর আমি যখন ফিরলাম, আমি মামলা করতে পারিনি। কারণ মামলা করার কোন অধিকার আমার ছিল না। আইন করে বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল, এই মামলা আমি করতে পারব না। ২১ বছর বিচার পাইনি। ২১ বছর পর সরকারে এসে তারপর মামলা করে সেই বিচার (বঙ্গবন্ধু হত্যাকা-) করি।’ দেশ সেবার সুযোগ করে দিয়ে দেশের জনগণ অন্যায়, অবিচারের প্রতিকার ও বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার করার সুযোগ দিয়েছে বলে দেশের জনগণের প্রতিও কৃতজ্ঞতা জানান সরকারপ্রধান শেখ হাসিনা।

আপনার মতামত লিখুন :