সাপের দংশনে মারা যায় এক কিশোরী।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৩:৪১ PM, ২১ অগাস্ট ২০২০

বুধবার রাতে সালমার বাম পায়ের আঙ্গুলে সাপে দংশন করে। এ সময় চিৎকারে জেগে ওঠেন সালমার বাবা-মা। তারা সাপটিকে পালিয়ে যেতে দেখেন। তাৎক্ষণিক সালমাকে এক ওঝার কাছে নেয়া হয়।

সেখানে কোনো কাজ না হলে আরো দুই ওঝার কাছে নেন। কিন্তু কোনো উন্নতি না হওয়ায় বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার একটি ক্লিনিকে নিলে রোগীর আগেই মৃত্যু হয়েছে বলে জানান চিকিৎসক।

স্থানীয়রা জানায়, মৃত কিশোরীকে সাপ বেশে দেবতা কামড় দিয়েছে বলে জানান পার্শ্ববর্তী উপজেলার যাদুরানী এলাকার এক ওঝা। তিনি কয়েক ঘণ্টা ঝাড়ফুঁকের মাধ্যমে তদবির চালান।

এ সময় শতাধিক লোক ভিড় জমান। আর তাদের সামনেই সাপে দংশন করা মৃত কিশোরীকে সুস্থ করার অপচেষ্টা চালানো হয়। পরে কিশোরীকে সারিয়ে তুলতে না পেরে চলে যান ওঝা।

সাপের দংশনে মারা যায় এক কিশোরী। কিন্তু মৃত কিশোরীকে সাপ বেশে দেবতা কামড় দিয়েছে বলে ঝাড়ফুঁকের মাধ্যমে তদবির চালাতে থাকেন এক ওঝা।

কয়েক ঘণ্টার চেষ্টায় কিশোরীকে সুস্থ করতে না পারায় কেটে পড়েন তিনি। বৃহস্পতিবার ঘটনাটি ঘটেছে ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার ডাইবেটিস মোড় সুন্দরপুর গ্রামে। মৃত সালমা আক্তার একই গ্রামের আব্দুস সালামের মেয়ে।

আপনার মতামত লিখুন :