সুশান্তের অভাব রয়েছে

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৪:১১ PM, ২৩ জুলাই ২০২০

‘কাই পো চে’ ছবির সেই স্বপ্নবাজ তরুণ যে নিজের পাশাপাশি অন্যদের নিয়েও ভাবে; ‘এমএস ধোনি :দ্য আনটোল্ড স্টোরি’র ধোনি যেন অন্য কেউ নয়, সুশান্ত নিজেই। ‘পিকে’ ছবির প্রিয়তমাকে হারিয়ে ফেলা সারফারাজের কষ্ট কী, তা দর্শকদেরও অনুভব করিয়েছেন সদ্য প্রয়াত এই বলিউড তারকা। ‘কেদারনাথ’ ছবিতে মৃত্যুকে তার অলিঙ্গন করে নেওয়া বিষ্ফ্মিত করেছিল কোটি দর্শককে। আবার ‘ছিচোড়ে’ দেখেও হাসি-কান্নায় একাকার হয়ে গেছেন অনেকে। সবমিলিয়ে সুশান্ত নানা চরিত্রের মধ্য দিয়ে সিনেমাপ্রেমীদের মনের সঙ্গে মিশে গিয়েছিলেন। হয়তো এ কারণেই তার কাজের অবশিষ্ট কিছু আছে কিনা, তার অনুসন্ধানে ব্যস্ত কোটি ভক্ত। বিষণ্ণতায় ভুগে সুশান্তের মৃত্যুকে বরণ কর নেওয়ার প্রধান কারণ ছিল, একের পর এক ছবি হাতছাড়া হয়ে যাওয়া। এরপর কিছু কাজ ছিল, যে শেষ করতে পেরেছিলেন। ‘দিল বেচারা’ তেমনই একটি ছবি। বলা হচ্ছে, পূর্ণাঙ্গভাবে কাজ শেষ করা একটি মাত্র ছবি, যা মুক্তি পাচ্ছে আগামীকাল।

বিষাদগ্রস্ত সুশান্ত ভক্তদের জন্য হতে পারে এটাই স্মৃতিচিহ্ন, যা দেখে বারবার প্রিয় অভিনেতাকে স্মরণ করতে পারবেন তারা। সেই ভক্তের সংখ্যা কত হতে পারে, তারও প্রমাণ পাওয়া যাবে ছবি মুক্তির পর। সিনেমাবোদ্ধা অনেকে ধরাণা করছেন, ‘দিল বেচারা’ বলিউড ছবির সাফল্যের নতুন মাইলফলক স্পর্শ করবে। এমন অনুমানের কারণ, ক’দিন আগে মুক্তি পাওয়া এ ছবির ট্রেলারের রেকর্ড সংখ্যক ভিউ। ইউটিউবে স্বল্প সময়ে কোটি দর্শকের লাইক পেয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়েছে ছবির ট্রেলার। এতে বোঝা যায়, সুশান্তের শেষ ছবিটি দেখার জন্য দর্শক কতটা ব্যাকুল হয়ে আছেন। ট্রেইলার মুক্তির কয়েক মিনিটের মধ্যে কয়েক লাখ ভিউ- এও প্রমাণ করেছে যে, সুশান্ত না থেকেও কীভাবে আমাদের মাঝে মিশে গেছে। ‘দিল বেচারা’র অদ্ভুদ বিষয় হলো, এটি সুশান্ত সিং রাজপুতের শেষ আর অভিনেত্রী সাঞ্জনা সাংঘির প্রথম সিনেমা। প্রথম যে কোনো কিছু নিয়ে সবার স্বপ্ন আর প্রত্যাশা বেশি থাকে। কিন্তু সাঞ্জনা এখন ঠিক বুঝে পাচ্ছেন না, এই ছবির সাফল্য বা ব্যর্থতা তাকে কতটা আনন্দ বা দুঃখ দেবে। সে শুধু সহশিল্পীর চলে যাওয়া নিয়েই এখনও ঘোরের মধ্যে আছে। তাই তো ক’দিন আগে সাঞ্জনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লিখেছেন, ‘আমরা তোমাকে খুব মিস করছি সুশান্ত। তোমার ভালোবাসার জন্য ধন্যবাদ’। সাঞ্জনার এই অনুভূতি, অন্যদিকে ট্রেইলার প্রকাশের পর ছবির সুশান্তের মুখে শোনা সংলাপ- ‘কখন জন্মগ্রহণ করতে হবে এবং কখন মরতে হবে তা আমরা সিদ্ধান্ত নিতে পারি না।’ দারুণভাবে আবেগী করে তুলেছে দর্শককে। তাই ছবির কাহিনিও দর্শক মনে আঁচড় কাটবে- এমন মন্তব্য অনেকের।

আপনার মতামত লিখুন :