হাপি হাহাকার বেড়েছে অনলাইনে বিক্রি।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:০২ PM, ৩০ জুলাই ২০২০

অনলাইনে  বেড়েছে বিক্রি। সরজমিনে রাজধানীর গাবতলী পশুর হাটসহ বেশ কয়েকটি হাট ঘুরে ও বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, হাটগুলোতে অল্প কিছু কোরবানির পশু আসলেও ক্রেতা একেবারেই হাতেগোনা। যারা আসছেন তারা হাটের পরিবেশ ও গরুর দাম শুনে চলে যাচ্ছেন।

একদিন পর ঈদুল আজহা। অথচ এখনো জমেনি রাজধানীর কোরবানির পশুর হাটগুলো। করোনা সংক্রমণের মধ্যে এবার ঢাকার আশপাশের খামারিদের মধ্যে অধিকাংশই হাটে যাননি। তারা এবার খামার থেকেই পশু বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

ব্যবসায়ীদের দেয়া তথ্যমতে, চাহিদার তুলনায় এবার দেশে ৩০ ভাগ বেশি পশু প্রস্তুত করা হয়েছে। কিন্তু করোনার কারণে এ বছর ৩০ থেকে ৫০ শতাংশ কোরবানি কম হবে বলে ধারণা করা করছেন সংশ্লিষ্টরা। ফলে গত বছরের তুলনায় পশু বিক্রিও ৫০ শতাংশ কম বলে আশঙ্কা তাদের।

অন্যদিকে ঢাকার বাইরে থেকেও এবার পরিবহন খরচ বেড়ে যাওয়ায় ব্যবসায়ীরা গরু-ছাগল আনতে পারছেন না। কিছু ব্যবসায়ীরা অল্প করে আনছেন, তবে হাটে ক্রেতাদের আনাগোনা নেই। ফলে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন হাটে আসা ব্যবসায়ীরা। তবে এবার অনলাইনে গত বছরের তুলনায় বেশি ক্রয়-বিক্রয় হচ্ছে।

কেনাবেচা শুরু না হওয়ায় গরু বিক্রি করা নিয়ে বিপাকে পড়েছেন বিক্রেতারা। বিক্রেতারা জানান, করোনার কারণে স্বাভাবিকভাবেই এবার মানুষ অভাবে পড়েছেন। তাই ক্রেতা কম। তবে বাজারে ছোট গুরুর চাহিদা আছে। যারা ২ লাখ টাকার দামের পশু কোরবানি করতেন তারা এবার ৭০-৮০ হাজারের পশু কেনার চিন্তা করছেন।

আপনার মতামত লিখুন :