৪ সেপ্টেম্বর থেকেই ডাকযোগে আগাম ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে।

Samia RahmanSamia Rahman
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৭:৫৯ PM, ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

 

কিছু রাজ্যে নির্বাচনের দুই সপ্তাহ আগে এমন ভোট গণনা করা হয়। বাকি রাজ্যে নির্বাচনের পর সেই কাজ করা হয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, রেকর্ড সংখ্যক ডাকযোগে ভোটের কারণে নির্বাচনের রাতে সার্বিক চিত্র উঠে আসবে না।

২০১৬ সালে ভোটারদের মাত্র এক-চতুর্থাংশ ডাকযোগে ভোট দিয়েছেন। দেশটির নির্বাচন সংশ্লিষ্টদের মতে, এবার এ সংখ্যা তিন-চতুর্থাংশ বা তার চেয়েও বেশি হতে পারে।

করোনাভাইরাস আতঙ্কে কেউই ভোট কেন্দ্রে গিয়ে সরাসরি ভোট দিতে চাইছেন না। উইসকনসিন রাজ্য জানিয়েছে, ইতোমধ্যেই তারা ডাক ভোটের জন্য গতবারের চেয়ে এক লাখ বেশি আবেদন পেয়েছে। ডাকযোগে ভোট দেয়ার জন্য ৪ লাখ ১৭ হাজারের বেশি আবেদন পেয়েছে রাজ্যটি।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শুরু থেকেই ডাক ভোটের বিরোধিতা করে আসছিলেন। তার অভিযোগ, এই প্রক্রিয়ায় কারচুপির আশঙ্কা বেশি। কোনো তথ্যপ্রমাণ ছাড়াই তিনি এমন আশঙ্কার কথা বলেন।

আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হলো ২০২০ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। শুক্রবার ৪ সেপ্টেম্বর থেকেই ডাকযোগে আগাম ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। এ দিন নর্থ ক্যারোলাইনা রাজ্যের ভোটারদের কাছে মেল ইন ভোটের কাগজপত্র পাঠানো হয়েছে।

করোনা মহামারীর কারণে এবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বেশিরভাগ ভোটারই ডাকযোগে ভোট দেবেন। সে কারণে প্রায় সব রাজ্য ভোটারের কাছে ব্যালট পেপার পাঠানোর প্রস্তুতি নিয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :